ব্রেকিং নিউজ

মধুপুরে বনের ২০ একর জায়গা দখলমুক্ত করলো প্রশাসন

নিউজ টাঙ্গাইল ডেস্ক: টাঙ্গাইলের মধুপুরে বন বিভাগের জাতীয় উদ্যান সদর রেঞ্জের গাছাবাড়ী বিটের ২০ একর জায়গার আনারস, কলা, বাগান কেটে জবর দখলমুক্ত হয়েছে। গত ৮ মার্চ থেকে ১০ মার্চ মঙ্গলবার পর্যন্ত অভিযানে এ জায়গা উদ্ধার করা হয়।

এসব উদ্ধারকৃত জায়গায় শাল বনের পরিবেশ সম্মত টেকসই বাগান ও পশু খাদ্যের জন্য সুফল প্রজেক্টের বনায়ন করা হবে।

বন বিভাগ সূত্রে জানা যায়, মধুপুরের গাছাবাড়ী বিটের চওড়া বাইদ ও শুকনপঁচা এলাকায় বন বিভাগের জায়গা স্থানীয় জবরদখলকারীরা ৫/৭ বছর যাবত জবরদখল করে আনারস, কলা, আদা, হলুদসহ নানা কৃষি ফসল চাষ করে আসছিল। বন বিভাগ এসব জায়গায় অভিযান চালিয়ে ২০ একর জায়গায় আনারস, কলা বাগান কেটে জবর দখল মুক্ত করেছে। মধুপুর শালবনের ঐতিহ্য ফিরাতে ও সুফল প্রজেক্টের আওতায় দেশী প্রজাতির বাগান ও পশু খাদ্যে পরিবেশ সম্মত বাগান এবং জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ করার জন্য এ উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে।

এ উদ্ধার অভিযানে কমিউনিটি ফরেস্ট ওয়ার্কার, বন বিভাগের কর্মকর্তা কর্মচারী ও সিএমসি সদস্যরা অংশগ্রহণ করেন।

এ ব্যাপারে গাছাবাড়ী বিট অফিসার মফিজ উদ্দিন জানান, গাছাবাড়ী বিটের পূর্ব দিকে শালবনের ভিতরে চওড়া বাইদ ও শুকনপঁচা এলাকায় স্থানীয় ভূমি খেকোরা ৫/৭ বছর যাবত জবর দখল করে আনারস, কলা চাষ করে আসছে। জবর দখল মুক্ত করতে অভিযান চালিয়ে ২০ একর জায়গা উদ্ধার করেছি। এসব জায়গায় শালবনের সাথে মিল রেখে পরিবেশ সম্মত বনায়ন করা হবে।

কো-ম্যানেজমেন্ট কমিটির পিপলস্ ফোরামের সভাপতি রানা শর্মা বলেন, ২০ একর জায়গা জবরদখল মুক্ত করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত এ সব জায়গায় প্রাকৃতিক বনের ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে বাগান করা হবে।

জাতীয় উদ্যান সদর রেঞ্জের রেঞ্জ কর্মকর্তা আব্দুল জলিল জানান, ৩ দিনে ২০ একর জায়গা জবরদখল মুক্ত করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত এ সব জায়গায় সুফল প্রজেক্টের আওতায় শালবনের সাথে মিল রেখে দেশী প্রজাতির গাছ রোপণ করা হবে। এতে পশু খাদ্যের সংস্থান হবে। হবে জীব বৈচিত্র্য সংরক্ষণ। শাল বনের ঐতিহ্য ফিরাতে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।

সহকারী বন সংরক্ষক জামাল হোসেন তালুকদার জানান, ৩ দিনে অভিযান চালিয়ে গাছাবাড়ী বিটে ২০ একর জায়গা জবরদখল মুক্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে চওড়া বাইদের নিচু এলাকায় জারুল, হিজল, রেইন ট্রিসহ দেশী প্রজাতির বিভিন্ন প্রজাতির গাছ রোপন করা হবে। অন্য জায়গায় পরিবেশ সম্মত টেকসই ও পশু খাদ্যের জন্য বনায়ন করা হবে।

এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে তিনি জানান।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.