ময়মনসিংহে গুজবে অসহায় করোনা রোগীর পরিবার

ময়মনসিংহের গফরগাঁও পৌর শহরে একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী (৬০) করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় উপজেলা প্রশাসন এলাকার ২৩ টি বাড়ি লকডাউন ঘোষণা করেছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে ওই রোগীকে নিজ বাসা থেকে উদ্ধার করে অ্যাম্বুলেন্সযোগে ময়মনসিংহ বিশেষায়িত এসকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদিকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার খবরকে কেন্দ্র করে ফেসবুকে রোগীর নাম ঠিকানা প্রকাশ করে অতি উৎসাহিদের বিভ্রান্তিকর গুজবে পরিবারটি চরম অসহায়তার মধ্যে পড়েছে। এমনকি আক্রান্ত রোগী মারা গেছেন বলেও পোষ্ট দিয়ে পড়ে সমালোচনার মুখে ডিলেট করা হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, পৌর শহরের প্রয়াত এক বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী শ্বাসকষ্ট জনিত অসুস্থতায় ভূগছিলেন। বৃহস্পতিবার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিতে গেলে কর্তৃপক্ষ নমুনা সংগ্রহ করে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মাইক্রো বায়লোজি বিভাগে পরীক্ষার জন্য প্রেরণ করেন। পরীক্ষায় পজিটিভ রিপোর্ট আসায় রাতে রোগীকে নিজ বাসা থেকে উদ্ধার করে অ্যাম্বুলেন্সযোগে ময়মনসিংহ বিশেষায়িত এস কে হাসপাতালে প্রেরণ করেন। রাতেই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মাহবুব উর রহমান রোগীর বাসার আশপাশের ২৩ টি বাসাকে লকডাউন ঘোষণা করে বিজ্ঞপ্তি দেন। এদিকে এই খবরকে কেন্দ্র করে কিছু অতি উৎসাহি ফেসবুক একাউন্ট রোগীর নাম ঠিকানা প্রকাশ করে পোষ্ট দেয়। এমনকি রোগী মারা গেছেন বলেও পোষ্ট দিয়ে পরে সমালোচনার মুখে ডিলিট করা হয়। এসব গুজবে পরিবারটি চরম অসহায় হয়ে পড়েছেন। আক্রান্তের ছেলে বলেন, কি করবো। আমরা এখন চরম অসহায় অবস্থার মধ্যে রয়েছি।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ মাইনুদ্দিন খান বলেন, রোগীকে ময়মনসিংহ এস কে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। আতঙ্কিত হওয়ার কোন কারণ নাই। যথা সময়ে চিকিৎসা পেলে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীরাও সুস্থ হন।

নিউজ টাঙ্গাইলের সর্বশেষ খবর পেতে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি অনুসরণ করুন - "নিউজ টাঙ্গাইল"র ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.