করোনা সংক্রমনের ঝুঁকি সকল বয়সেই —হতে হবে সচেতন

কোন রোগের বিস্তার ও তার ইটিওলজি দেশ ও এলাকার ভিত্তিতে ভিন্ন হয়ে থাকে। চীনে অল্প বয়সীদের মধ্যে করোনা সংক্রমনের হার কম থাকলেও আমেরিকাতে দেখা গিয়েছে ভিন্ন চিত্র। সেখানে অল্প বয়সীদের মধ্যে অনেকেই আক্রান্ত হয়েছে। বাংলাদেশেও সেই ধারাবাহিকতা লক্ষ করা যাচ্ছে। আমাদের দেশে বয়স্কদের পাশাপাশি শিশু সহ তরুণ এবং মধ্য বয়সীদের মধ্যে সংক্রমনের হার তুলনামূলক বেশী দেখা যাচ্ছে।

বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত ৪২৪ জনের মধ্য করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। টেস্টের সংখ্যা বাড়ার সাথে সাথে শনাক্তের সংখ্যাও বাড়ছে।

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস শনাক্ত ৭০ শতাংশের বয়স ৫০ বছরের নিচে। যার মধ্যে সবচেয়ে বেশি সংক্রমন পাওয়া গিয়েছে ২১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে। সংখ্যায় যা মোট ৪২৪ জনের মধ্যে ২৫৫ জন। সংক্রমনের শুরুতে চীনে ৫০ বছরের নিচে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের হার ছিলো যেখানে ৪৬ শতাংশ। ২১ থেকে ৩০ বছরের তরুণদের মাঝেও বাংলাদেশে সংক্রমনের হার প্রকট। মোট আক্রান্তের যা ২০ শতাংশ। বাংলাদেশ করোনা সংক্রমনের ঝুঁকি থেকে নিরাপদ নেই শিশুরাও। এখন পর্যন্ত ১০ বছরের নিচে শিশুদের মধ্যে করোনা সংক্রমন পাওয়া গিয়েছে ১৪ জনের মধ্যে। ইতালিতে যেখানে বিশ বছরের নিচে সংক্রমনের হার দুই শতাংশের নিচে, সেখানে বাংলাদেশ এই হার দশ শতাংশ। বিভিন্ন তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা যাচ্ছে করোনা সংক্রমনে বাংলাদেশে সকল বয়সের মানুষ ঝুঁকিতে আছে।

অনান্য দেশের শিশু এবং মধ্য বয়সীদের ক্ষেত্রে সংক্রমন এবং মৃতের হার কম দেখে আমাদের দেশের অনেকের মাঝে বেশ অসচেতনতা পরিলক্ষিত হচ্ছে । যার মধ্যে তরুণ ও যুবক শ্রেনীর মানুষ উল্লেখযোগ্য। যত্রতত্র ঘোরাঘুরি, একসঙ্গে আড্ডা, একই সিগারেট কয়েকজন মিলে পান, এসকল কারণ তরুণদের মাঝেও করোনা সংক্রমনের ঝুঁকি বাড়াচ্ছে। অনেক সময় বিনা প্রয়োজনে উৎসাহী মানুষ রাস্তায় বেরিয়ে অাসছে। জনসংখ্যার ঘনত্ব, সচেতনতার অভাব, এবং অনান্য স্বাস্থ্যগত কারণে বাংলাদেশে সকল বয়সী মানুষের মাঝে করোনা সংক্রমনের ঝুঁকি বাড়াছে।

করোনা ভাইরাসে বয়স্ক এবং ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ সহ অনান্য রোগে আক্রান্তদের ক্ষেত্রে মৃত্যু হার বেশী। তবে ভাইরাস বিস্তারের ক্ষেত্রে সকল বয়সের মানুষের ভূমিকা রয়েছে। সংক্রমনের শুরুতে লক্ষণ প্রকাশ না পাওয়ায় অনেকে নিজের অজান্তেই করোনা ভাইরাস অন্যের মাঝে ছড়িয়ে দিচ্ছে। তারা বাহক হিসেবে কাজ করছে এবং কমিউনিটি পর্যায়ে সংক্রমন ঝুঁকি তৈরি করছে।

বাংলাদেশে করোনার দূত বিস্তার আমাদেরকে নতুন করে ভাবাচ্ছে । নিয়মিত স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলা, কথা বলার সময় দূরত্ব বজায় রাখা, কোয়ারেন্টাইন সঠিক ভাবে পালন করা কমাতে পারে বাংলাদেশে করোনার বিস্তার। এখন পর্যন্ত প্রাপ্ত তথ্যে দেখা যায়, করোনার সংক্রমন বিস্তারে বয়সের তেমন পার্থক্য নেই। তাই বিস্তার রোধে ভুল ধারনা থেকে বের হয়ে এসে সচেতন হতে হবে সকল বয়সের মানুষকে।

ডঃ মোঃ খাইরুল ইসলাম 

সহযোগী অধ্যাপক 

বায়োকেমিস্ট্রি এন্ড মলিকুলার বায়োলজি বিভাগ। 

মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

One comment

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.