এবার বিধবাকে দলবেঁধে ধর্ষণ, হাত-পা বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার

নিউজ টাঙ্গাইল ডেস্ক: লক্ষ্মীপুরের রামগতিতে ঘরে ঢুকে এক বিধবা নারীকে দলবেঁধে ধর্ষণের পর হাত-পা বেঁধে বাড়ির পেছনে ফেলে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে। পূর্ব বিরোধকে কেন্দ্র করে স্থানীয় বখাটে জামাল হোসেনসহ ৫ জন মিলে ওই নারীকে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী পরিবার।

এ ঘটনায় সোমবার (৫ অক্টোবর) দুপুরে ভিকটিম নারী বাদী হয়ে রামগতি থানায় জামাল হোসেনকে প্রধান আসামী করে ৫ জনের নামে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেন। পরে জামাল ও সোহেল নামে দুজনকে আটক করেছে পুলিশ।

এর আগে রোববার (৪ অক্টোবর) গভীর রাতে উপজেলার চরপোড়া গাছা ইউনিয়েনের কলাকোপা এলাকায় ধর্ষণের শিকার হন ওই বিধবা নারী। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করেন নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন।

পুলিশ জানান, চরপোড়া গাছা ইউনিয়েনের কলাকোপা এলাকায় নিজ ঘরে একাই থাকেন বিধবা নারী। গভীর রাতে একা পেয়ে জামাল উদ্দিনসহ স্থানীয় ৫ জন বখাটে ঘরে প্রবেশ করে। এসময় তারা ওই বিধবা নারীকে জোরপূর্বক সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করে হাত-পা, মুখ ও চোখ বেঁধে বাড়ির পেছনে ফেলে চলে যায়। পরে স্থানীয়রা তাকে রক্তাক্ত ও হাত-পা, মুখ ও চোখ বাঁধা অবস্থায় দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ভিকটিমকে উদ্ধার করে নোয়াখালী হাসপাতালে ভর্তি করেন।

রামগতি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সোলেমান জানান, বিধবা নারীকে দলবেঁধে ধর্ষণের অভিযোগ ভিকটিম নিজেই থানায় ৫ জনকে আসামি করে মামলা করেন। দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকি অভিযুক্তদের ধরার চেষ্টা চলছে।

"নিউজ টাঙ্গাইল"র ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.