রেলখাত লোকসান কাটিয়ে লাভের মুখ দেখতে পারছে না: রেলমন্ত্রী

ফরমান শেখ: রেলপথ মন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন বলেছেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবকে হত্যার পর সকল প্রকার রেল ব্যবস্থা ধ্বংস করেছিলো। এখন পর্যন্ত ১০৭টি রেল স্টেশন বন্ধ রয়েছে। বিএনপি-জামাত আর নতুন করে রেল খাতে উন্নয়ন করেনি। তারা বিএনপি-জামায়াত সরকার রেলখাতকে ধংস করে দিয়েছে। তাই রেলখাতের লোকসান কাটিয়ে লাভের মুখ দেখতে পারছে না। বর্তমান সরকার রেল ব্যবস্থাকে তৈরি করছে। এটির সুফল পেতে সময় লাগবে। আগামীতে এর সুফল পাওয়া যাবে।
রোববার (২২ নভেম্বর) বিকালে টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেলওয়ে সেতু নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের লক্ষ্যে প্রস্তুতিমূলক সভায় যোগদানের আগে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।
মন্ত্রী বলেন, সেতুটি দুইটি ভাগে নির্মাণ কাজ হবে। একটি টাঙ্গাইল অংশে অন্যটি সিরাজগঞ্জ অংশে। ১’শ কিলোমিটার গতিতে সেতুর উপর দিয়ে রেল চলাচল করতে পারবে। ফলে দেশে রেলের চাহিদা পূরণ হবে। আগামী ২০২৪ সালের আগস্টে এই সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ হবে। জাপানের আর্থিক সহায়তায় এর নির্মান ব্যয় হবে ১৬ হাজার ৭৮১ কোটি টাকা ব্যয় ধরা হয়েছে।
তিনি আরও বলেন, রেল একটি সেবামূলক প্রতিষ্ঠান। যাত্রী পরিবহন করে রেলকে লাভজনক অবস্থায় নেয়া যায় না। লাভের চেয়ে তাই সেবাকেই প্রাধান্য দেয়া হয় বেশি। আর পৃথিবীর কোন দেশের রেলই লাভজনক নয়। তবে আমরা রেলকে যুগোপযোগী ও আধুনিকায় করে যাচ্ছি। আশা করছি রেল লাভজনক অবস্থায় যাবে।
এসময় উপস্থিত ছিলেন- টাঙ্গাইল স্থানীয় এমপি সানোয়ার হোসেন, হাসান ইমাম খান সোহেল হাজারী, ছোট মনির, রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব সেলিম রেজা, মহাপরিচালক মো. শামছুজ্জামান, জেলা প্রশাসক আতাউল গনি, পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায় প্রমুখ। পরে সন্ধ্যায় জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব রেলওয়ে সেতু নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের লক্ষ্যে প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়।
টাঙ্গাইল জেলার খবর সবার আগে জানতে ভিজিট করুন www.newstangail.com। ফেসবুকে দ্রুত আপডেট মিস করতে না চাইলে এখনই News Tangail ফ্যান পেইজে (লিংক) Like দিন এবং Follow বাটনে ক্লিক করে Favourite করুন। এর ফলে আপনার স্মার্ট ফোন বা কম্পিউটারে সয়ংক্রিয়ভাবে নিউজ আপডেট পৌঁছে যাবে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.