কালিহাতীতে যুবলীগের নির্বাচনী পথসভায় হামলার শিকার কেন্দ্রীয় নেতা

নিউজ টাঙ্গাইল ডেস্ক: টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে আওয়ামী যুবলীগের নির্বাচনী পথসভায় হামলার শিকার হয়েছেন যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য জহিরুল হক জাকির। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কালিহাতী পৌরসভার মেয়র প্রার্থীর নির্বাচনী পথসভায় অংশ নিতে গিয়ে তিনি ওই হামলার শিকার হন। বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে অনেকেই হামলার ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন।

জানা যায়, কালিহাতী পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী নুরুন্নবী সরকারের পক্ষে শহীদ শফি সিদ্দিকী চত্ত্বরে স্থানীয় যুবলীগ এক পথসভার আয়োজন করে। সভায় কেন্দ্রীয় যুবলীগের সিনিয়র প্রেসিডিয়াম সদস্য এডভোকেট মামুনুর রশিদ মামুনের নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় যুবলীগের ১২ সদস্যের একটি টিম ওই পথসভায় অংশগ্রহন করে। কেন্দ্রীয় যুবলীগের ওই টিমের সদস্য জহিরুল হক জাকির মঞ্চে বক্তব্য শেষে পানি কেনার জন্য পাশের একটি দোকানে যান। সেখানে অজ্ঞাত ৪-৫ ব্যক্তি লাকড়ি ও লাঠি নিয়ে তার উপর হামলা চালায়। তিনি দৌঁড়ে মঞ্চে পৌঁছালে হামলাকারীরা চলে যায়।

এ ঘটনায় মঞ্চে থাকা কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতারা হতবিম্ভব হয়ে পড়েন। পরে কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতৃবৃন্দ কোন রকমে সভা শেষ করে ঢাকায় চলে যান। বিষয়টি স্থানীয় পর্যায়ে ব্যাপক আলোচনা- সমালোচনার সৃষ্টি করেছে।

হামলার শিকার কেন্দ্রীয় আওয়ামী যুবলীগের সদস্য জহিরুল হক জাকির অভিযোগ করে বলেন, স্থানীয় এমপি হাছান ইমাম খান সোহেল হাজারির মদদপুষ্ট স্থানীয় আজিজুল, মিনহাজ ও রানার নেতৃত্বে ৪-৫জন আমার উপর হামলা করে। আমার গ্রামের বাড়ি কালিহাতী উপজেলার পারখী ইউনিয়নের মাইজবাড়ী গ্রামে। রাজনৈতিক মতানৈক্যের কারণে এ হামলা চালানো হয়েছে। ঘটনাটি উপস্থিত নেতৃবৃন্দ ও কর্মী-সমর্থকরা প্রত্যক্ষ করেছে।

টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক এবং ওই পথসভার বিশেষ অতিথি ফারুক হোসেন মানিক বলেন, স্থানীয় কোন্দল বা দ্বন্দ্বের কারণে এ ঘটনাটি ঘটে থাকতে পারে। বিষয়টি অত্যন্ত দু:খজনক ও নিন্দনীয়। যেহেতু কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন তাই তাদের পরামর্শেই এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

কালিহাতী পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মেয়র প্রার্থী ও উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি নুরুন্নবী সরকার বলেন, পথসভায় বক্তব্য রেখে আমি অন্যত্র গণসংযোগে ব্যস্ত হয়ে পড়ি। হামলার বিষয়ে আমি পুরোপুরি অবগত নই। কালিহাতী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সওগাতুল আলম বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। তবে এ বিষয়ে কেউ লিখিত কোন অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

টাঙ্গাইল জেলার খবর সবার আগে জানতে ভিজিট করুন www.newstangail.com। ফেসবুকে দ্রুত আপডেট মিস করতে না চাইলে এখনই News Tangail ফ্যান পেইজে (লিংক) Like দিন এবং Follow বাটনে ক্লিক করে Favourite করুন। এর ফলে আপনার স্মার্ট ফোন বা কম্পিউটারে সয়ংক্রিয়ভাবে নিউজ আপডেট পৌঁছে যাবে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.