ব্রেকিং নিউজ :

চাকরির নামে ১০ লাখ টাকা আত্মসাৎ, কারাগারে চেয়ারম্যানপ্রার্থী

নিউজ টাঙ্গাইল ডেস্কঃ ঢাকার ধামরাইয়ে সেনাবাহিনীতে চাকরি দেয়ার নামে প্রতারণা করে ১০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার ঘটনায় রবিউল করিম রোবেল নামে এক চেয়ারম্যান প্রার্থীকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার বিকালে আদালতে মানিকগঞ্জ ৪নং জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জামিন নিতে গেলে আদালত তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠান।

তিনি উপজেলার সুতিপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী, কালামপুর বাজার বণিক সমিতির সভাপতি ও উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি।

এছাড়াও কালামপুর গ্রামের মৃত মাদবর আলীর স্ত্রী ভানু আক্তার (৬৫) আমানতের ৩ লাখ ও ছোট কালামপুরের কামাল হোসেনের স্ত্রীর (৪৫) ২ লাখ ১০ হাজার টাকাসহ বিভিন্ন ভুক্তভোগী ধামরাই থানায় রবিউল করিম রোবেলের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন। পুলিশ এসব অভিযোগের বিষয়েও তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা পেয়েছে বলে সূত্র নিশ্চিত করেছে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, পূর্বপরিচয়ের সূত্র ধরে টাঙ্গাইল জেলার নাগরপুর থানার জয়ভাগ গ্রামের মো. আজম মিয়ার ছেলেকে সামরিক বাহিনীতে সৈনিক পদে চাকরি দেয়ার নামে প্রতারণা করে ১০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয় ঢাকা জেলার ধামরাই উপজেলার কালামপুর বাজার বণিক সমিতির সভাপতি ও সুতিপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী রবিউল করিম রোবেল।

২০১৮ সালের ২৩ মে ১০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেন তিনি। মানিকগঞ্জ জেলার দৌলতপুর থানার আগকলিয়া গ্রামের মো. এলাহী মিয়ার বাড়িতে বসে এ টাকা লেনদেন করা হয়।

পরবর্তীতে বাদীর ওই ছেলের সামরিক বাহিনীর সৈনিক পদে চাকরি দেয়া হয়নি। চাকরি না হওয়ায় সাক্ষীগণের উপস্থিতিতে ওই প্রতারকের কাছে টাকা ফেরত চান বাদী। তার টাকা ফেরত না দিয়ে উল্টো তাকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর হুমকি প্রদান করে।

ফলে বাদী নিরুপায় হয়ে ২০১৯ সালে মানিকগঞ্জ ৪নং সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি প্রতারণার মামলা দায়ের করেন।

বৃহস্পতিবার বিকালে আদালতে প্রতারক রবিউল করিম রোবেল ওই সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জামিন নিতে গেলে তার জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণ করেন বিজ্ঞ বিচারক।

মামলার বাদী আজম মিয়া বলেন, আমার আত্মীয় মানিকগঞ্জ জেলার দৌলতপুর থানার আগকলিয়া গ্রামের এলাহী মিয়ার সঙ্গে বন্ধুত্বের সুবাদে আমার ছেলেকে সামরিক বাহিনীর সৈনিক পদে চাকরি দেয়ার জন্য ঢাকা জেলার ধামরাই উপজেলার কালামপুর বাজার বণিক সমিতির সভাপতি মো. রবিউল করিম রোবেল আমার কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়।

চাকরি না দিলে তার কাছে টাকা ফেরত চাই। টাকা না দিয়ে উল্টো আমাকে মামলায় ফাঁসানোর হুমকি দেয় ওই প্রতারক। ফলে নিরুপায় হয়ে আদালতে মামলা দায়ের করি। এ মামলায় আদালত তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরওয়ানা জারি করেন। বিবাদী বৃহস্পতিবার আদালতে জামিন নিতে গেলে আদালত তাকে জামিন না দিয়ে কারাগারে প্রেরণ করেন।

ধামরাই থানার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মো. সেলিম রেজা বলেন, ভানু আক্তার ও রেনু আক্তারসহ ২ জন অভিযোগকারীর অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত চলছে।  ভুক্তভোগীদের পাওনাকৃত টাকা ফেরত না দেয়া হলে এ ব্যাপারে মামলা দায়ের করা হবে।

"নিউজ টাঙ্গাইল"র ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.