ব্রেকিং নিউজ :

দু’মাস পর বিক্রি করা সন্তান ফিরে পেলেন মা

নিউজ টাঙ্গাইল ডেস্ক; পুলিশ ও বেসরকারি সংস্থা ব্র্যাকের সহায়তায় দু’মাস আগে বিক্রি করা কন্যা সন্তান ফাতেমাকে (০১) ফেরত পেলেন মা রাজিয়া খাতুন।

বৃহস্পতিবার (১৮ মার্চ) বিকেলে ব্র্যাক বেলকুচি শাখার মানবাধিকার ও আইন সহায়তা কর্মসূচির এইচ আর এল এস অফিসার চন্দনা খাতুন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, চৌহালী থানা পুলিশের সহায়তায় সোমবার (১৫ মার্চ) রাতে টাঙ্গাইল পৌর এলাকা থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয় এবং তার মায়ের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

তিনি বলেন, প্রায় দু’মাস আগে ব্র্যাক আইন সহায়তা অফিসে এসে চৌহালী উপজেলার চরধীপপুর গ্রামের আমজাদ হোসেনের ছেলে বাবু মোল্লার বিরুদ্ধে শিশু কন্যা বিক্রি করে দেওয়ার অভিযোগ করেন তার স্ত্রী রাজিয়া খাতুন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে চৌহালী থানাকে বিষয়টি আমরা অবহিত করি এবং দু’মাস ধরে শিশুটিকে খোঁজাখুঁজি করা হয়।

শিশুটির মা রাজিয়া খাতুন জানান, থানা পুলিশ ও ব্র্যাক আমার বাচ্চাকে উদ্ধার করে আমাকে ফিরিয়ে দিয়েছে। আমি অনেক খুশী হয়েছি। ধন্যবাদ জানাই ব্র্যাক ও থানা পুলিশকে।

এ বিষয়ে চৌহালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম জানান, বাবু মোল্লা একাধিক বিয়ে করেছেন। তিনি স্ত্রী-সন্তানদের ভরণপোষণ করতে পারেন না। সাংসারিক অভাব-অনটন নিয়ে স্ত্রী রাজিয়ার সঙ্গে ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে তাদের এক বছর বয়সী শিশু সন্তান ফাতেমাকে রেখে স্ত্রী রাজিয়াকে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেন। এরপর বাবু মোল্লা ও তার বাবা আমজাদ হোসেন শিশুটিকে পাবনা জেলার কাশিনাথপুর এলাকার এক নিঃসন্তান দম্পতির কাছে বিক্রি করে দেন। বিক্রির সময় শিশুটিকে তার মা ফেলে রেখে পালিয়ে যাওয়ার কথা বলেন তারা। নিঃসন্তান দম্পতি শিশু কন্যাকে নিজের সন্তানের মতোই লালন-পালন করছিলেন। এ অবস্থায় মায়ের অভিযোগের প্রেক্ষিতে টাঙ্গাইল শহর থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করে হস্তান্তর করা হয়েছে। সূত্র: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

"নিউজ টাঙ্গাইল"র ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.