সখীপুরে মসজিদে লাইট লাগানোকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ উভয়পক্ষের আহত ৯ । পাল্টাপাল্টি মামলা। গ্রেফতার দুই

এম সাইফুল ইসলাম শাফলু : টাঙ্গাইলের সখীপুরে মসজিদে ইফতারি মাহফিলে লাইট লাগানোকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে উভয়পক্ষের ৯জন আহত হয়েছেন। শুক্রবার জুম্মার নামাজ শেষে পৌরসভার ৫নম্বর ওয়ার্ডের গড়গোবিন্দপুর পশ্চিমপাড়া নালারচালা জামে মসজিদে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় সখীপুর থানায় বিল্লাল ভূইয়া ও শামছুল হক বাদী হয়ে পৃথক দুটি পাল্টাপাল্টি মামলা করেছেন। পুলিশ বিল্লাল ভূইয়ার মামলার প্রধান আসামি শামছুল হকের ছেলে শহিদুর মিয়া (৩৫) এবং তার ভাই সোহাইল মিয়া ওরফে শুভকে (১৯) গ্রেফতার করেছে।

জানা যায়, গত ১৫ এপ্রিল বৃহস্পতিবার পৌরসভার ৫নম্বর ওয়ার্ডের গড়গোবিন্দপুর পশ্চিমপাড়া নালারচালা জামে মসজিদে ইফতার মাহফিলে লাইট লাগানোকে কেন্দ্র করে হেলাল ভূইয়া এবং শামছুল হকের সাথে কথাকাটাকাটি হয়। এরই জের ধরে পরদিন ১৬ এপ্রিল শুক্রবার জুম্মার নামাজ শেষে শামছুল হকের ছেলে শহিদুর রহমান, সোহাইল মিয়া ওরফে শুভ এবং আজাহার আলীর ছেলে শাকিল মিয়া হেলাল ভূইয়ার ওপর হামলা চালালে পরক্ষণে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এতে পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ড গড়গোবিন্দপুর এলাকার জাফর ভূইয়ার ছেলে হেলাল ভূইয়া (৪৫), তার ছেলে শাহিন ভূইয়া (৩১)এবং কিতাব আলীর ছেলে কামাল মিয়া (৩৮) আহত হন। অপরপক্ষের মৃত আজাহার আলীর ছেলে শাকিল মিয়া (২৮), তার ছোট ভাই সাব্বির হোসেন (২৪), আলী হোসাইনের ছেলে শাহজাহান মিয়া (৫৮), শামছুল হকের ছেলে শহিদুর রহমান (৩৫), শহিদুরের স্ত্রী হাজেরা বেগম (২৭)এবং শাহ আলমের ছেলে জাদরিল মিয়া (২৪) আহত হন। আহতদের উদ্ধার করে সখীপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এদের মধ্যে হেলাল ভূইয়ার অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এ ব্যাপারে সখীপুর থানার ওসি (তদন্ত) এএইচ এম লুৎফুল কবির বলেন, মসজিদে সংঘর্ষের ঘটনায় উভয়পক্ষের মামলা হয়েছে। পুলিশ অভিযুক্ত দুজনকে গ্রেফতার করে টাঙ্গাইল আদালতে পাঠিয়েছে। বাকীদেরও গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

 

 

"নিউজ টাঙ্গাইল"র ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.