ব্রেকিং নিউজ :

সাফারি পার্কের সেই নীলগাইটি টাঙ্গাইল থেকে যেভাবে উদ্ধার করা হলো

নিউজ টাঙ্গাইল ডেস্কঃ গাজীপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্ক থেকে প্রায় দুই মাস আগে পালিয়ে নীলগাইটি সোমবার বিকেলে টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলা থেকে উদ্ধার হয়েছে।মঙ্গলবার সকালে নীলগাইটি পার্কে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

টাঙ্গাইল বনবিভাগের সহকারী বন সংরক্ষক (মধুপুর) জামাল উদ্দিন তালুকদার জানান, ৬ ফুট দৈর্ঘ্য, ৪ ফুট উচ্চতা, মুখ লম্বা ও গলার নিচে লম্বা ঘন কেশের বিপন্ন প্রজাতির এই প্রাণীটিকে নীলগাই বলে নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্যারাসাইটোলজি বিভাগের অধ্যাপক আনিসুজ্জামান। এটি ভারতীয় নীলগাই। শুধু ইন্ডিয়াতেই নয়, সারা বিশ্বে প্রাণীটি বিপন্নের তালিকায় রয়েছে।

প্রায় এক বছর আগে এটি ভারতের সীমান্ত দিয়ে পঞ্চগড় জেলায় ঢুকে পড়লে এলাকাবাসী ধরে একে বনবিভাগের কাছে হস্তান্তর করে। পরে নীলগাইটি গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্ক কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হয়। নীলগাইটি গত ১৯ ফেব্রুয়ারি গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্ক থেকে পালিয়ে যায়।

সোমবার বিকেলে টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলার দক্ষিণ লাউফুলা গ্রামে নীলগাইটি এলাকাবাসীর নজরে আসে। তারপর তারা এটিকে ধাওয়া করে। কয়েক ঘণ্টা ধাওয়া খেয়ে পরিশ্রান্ত হয়ে স্থানীয় ফরমান আলীর বাড়িতে উঠলে সেখান থেকে এটিকে আটক করা হয়।

খবর পেয়ে আলোকদিয়া ফাঁড়ি পুলিশ ও বনবিভাগের লোকজন ঘটনাস্থলে গিয়ে গাইটিকে উদ্ধার করে হেফাজতে নেয়।

আলোকদিয়া পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক এসআই সিরাজুল ইসলাম জানান, রাতে সাফারি পার্ক কর্তৃপক্ষের নিকট নীলগাইটিকে হস্তান্তর করা হয়েছে।

সাফারি পার্কের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. তবিবুর রহমান জানান, মঙ্গলবার সকালে নীলগাইটি পার্কে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। পার্কের ডিয়ার সাফারি বেষ্টনীতে দুইটি নীলগাই ছিলো। বেষ্টনীটি হরিণের জন্য উপযোগী থাকলেও নীলগাই’র উপযোগী করে তৈরি ছিলো না।

গত ১৯ ফেব্রুয়ারি পার্কের পাশে এক অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ভয়ে বেষ্টনী ডিঙ্গিয়ে পালিয়ে গিয়েছিল নীলগাইটি। পরে বিভিন্ন স্থানে খোঁজেও সন্ধান মিলছিলো না তার। বর্তমানে ওই বেষ্টনী আরো উঁচু করা হচ্ছে।

"নিউজ টাঙ্গাইল"র ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.