ব্রেকিং নিউজ :

ভূঞাপুরে রাতে ঘুমিয়ে ছিল স্বপ্না, সকালে ঝলন্ত মরদেহ

ফরমান শেখ | টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে ঝুলন্ত অবস্থায় স্বপ্না (২৩) নামে এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে ভূঞাপুর থানা পুলিশ। স্বপ্না উপজেলার ফলদা গ্রামের আসাদুলের স্ত্রী। সোমবার সকালে উপজেলার ফলদা গ্রামের স্বপ্নার ঘর থেকে মরদেহ উদ্ধার করা হয়।
তবে এ ঘটনায় স্বপ্নার শ্বশুর বাড়ীর লোকজন রাতের কোন এক সময়ে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে মরদেহ ঘরের ধণ্নার সাথে ঝুলিয়ে রাখেন বলে অভিযোগ করেছেন স্বপ্নার পরিবারের স্বজনরা।
স্বপ্নার ভাই দুলাল হোসেন গণমাধ্যমকর্মীদের জানান, আমার বোন স্বপ্নার বিয়ের পর থেকেই শ্বশুর বাড়ির লোকজন তাকে নানাভাবে নির্যাতন করে আসছিলো এবং তারাই পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে। তিনি তার বোন হত্যাকান্ডের বিচার দাবি করেছে।
এ বিষয়ে জানার জন্য ফলদা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাইদুল ইসলাম তালুকদার দুদুকে একাধিকবার ফোনকলের পর রিসিভ করলে তিনি জানান, একটু পরে, আমি এক দরবারে আছি।
এ ঘটনায় ঘটনায় ভূঞাপুর থানা ভারপ্রাপ্ত (ওসি) আব্দুল ওহাব জানান, স্থানীয়দের কাছে খবর শুনে স্বপ্নার মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।
তিনি আরও জানান, ময়নাতদন্তের রিপোর্টের পর জানা যাবে মৃত্যুর সঠিক কারণ। তবে ঘটনায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করেছে স্বপ্নার পরিবার।
এদিকে জানা গেছে, উপজেলার ফলদা গ্রামের হেলাল উদ্দিনের ছেলে আসাদুলের সাথে পাঁচ বছর আগে বিয়ে হয় একই উপজেলার রুহুলী গ্রামের দারোগ আলীর মেয়ে স্বপ্নার। রোববার রাতে স্বামী আসাদুলের সাথেই ঘুমিয়ে ছিলো স্বপ্না।
এরপর সোমবার সকালে বাড়ী থেকে বের হয়ে যায় স্বপ্নার স্বামী আসাদুল। পরে ঘরে স্বপ্নার ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশেকে খবর দেয় বাড়ীর লোকজন। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে মরদেহ উদ্ধার করেন।
"নিউজ টাঙ্গাইল"র ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.