ব্রেকিং নিউজ :

মধুপুরে আদিবাসী গণমাধ্যম কর্মীকে নির্যাতনকারীদের বিচার দাবীতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি

মধুপুর প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলের মধুপুরে আদিবাসী গণমাধ্যম কর্মী প্রিন্স এডুয়ার্ড মাং সাং কে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনকারীদের বিচার দাবী ও তার মুক্তির দাবীতে মানববন্ধন করে জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছেন স্থানীয় গারো আদিবাসী সহ এলাকাবাসীরা।

মঙ্গলবার সকালে মধুপুর উপজেলার ২৫ মাইল বাসস্ট্যান্ডে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে বক্তব্যে রাখেন-আজিয়া কেন্দ্রীয় কমিটির আহবায়ক মিঠুন হাগিদক, বাংলাদেশ গারো ছাত্র সংগঠন(বাগাছাস)এর সভাপতি লিংকন দিব্রা, সাবেক সহ সভাপতি শ্যামল মানখিন, বাগাছাস মধুপুর উপজেলা শাখার সভাপতি বিজয় হাজং, জিএসএফ এর সাবেক সাধারণ সম্পাদক সতেজিৎ নকরেক, ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা রাজীব ম্রং, মধুপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সানী চাম্বুগং ও চদ্রনা ঘাগরা, ফালগুনি ঘাগরা সহ অন্যান্যরা।

বক্তারা অনতিবিলম্বে অদিবাসী গণমাধ্যম কর্মী প্রিন্স এডুয়ার্ড মাং সাং কে গাছে বেধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনকারী অরণখো ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম গংদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবী করে তার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবী জানিয়ে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। সেই সাথে ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহিমের অপসারণের দাবী করেন।

এসময় বক্তারা তাদের বক্তব্যে আরও বলেন, একজন চেয়ারম্যান কীভাবে আইন নিজের হাতে তুলে নেন এটা তাদের বোধগম্য নয়! তবে আদিবাসী একজন গনমাধ্যম কর্মীকে এভাবে তার সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন সহ্য করা হবে না বলে জানান। গত ১৮ আগষ্ট অরণখোলা গ্রামে ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রহিমের বাড়ীর পাশে পুকুরে ডুবে ২ শিশু নিখোজের ঘটনায় সংবাদ সংগ্রহ করতে যান তিনি। কিছুদিন পূর্বে রহিম চেয়ারম্যানের দুর্নীতি নিয়ে একটি অনলাইন সংবাদ মাধ্যমে খবর প্রকাশ করেন তিনি। তাই এই পূর্ব শশ্রুুতার জের ধরে তাকে গাছে বেধে মধ্যযুগীয় কায়দায় মারপিট করে রহিম চেয়ারম্যান বাদী হয়ে তার বিরুদ্ধে মিথ্যা ছিনতাই মামলা দিয়ে জেল হাজতে পাঠায় এই গনমাধ্যম কর্মীকে। শুধু তাই নয় তার ব্যবহৃত মোটর সাইকেল, সংবাদ চিত্র ধারনের ক্যামেরা, কলম ও মোবাইল সহ কাছে থাকা টাকা পওয়া নিয়ে নেয়া হয়েছে। তাকে দ্রুত মুক্তি দেওয়া ও দোষীদের বিচার সহ ইউপি চেয়ারম্যান রহিমের অপসারণ করতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, স্বারাষ্ট্র মন্ত্রী সহ স্থানীয় সরকার মন্ত্রী, স্থানীয় মধুপুর-ধনবাড়ী আসনের সংসদ সদস্য কৃষিমন্ত্রী, টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার সহ প্রশাসনের সকল স্তরের কর্মকর্তাদের নিকট জোর হস্তক্ষেপ করেন তারা।

এবং কী যদি নির্যাতনকারী চেয়ারম্যান সহ দোষীদের দ্রুত বিচার সহ চেয়ারম্যানকে অপসারণ না করা হয় তাহলে আগামী দিনে কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারী দেন বক্তারা।

মানববন্ধন শেষে মধুপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামীমা ইয়াসমীনের মাধ্যমে টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি দেন প্রদান করেন তারা।

"নিউজ টাঙ্গাইল"র ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.