ব্রেকিং নিউজ :

সখীপুরে সন্তানসহ চাচীকে বিয়ে করায় আ.লীগ নেতা শরিফকে বহিষ্কার দাবিতে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

 নিজস্ব প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলের সখীপুরে দুই সন্তানসহ চাচীকে বিয়ে করার অভিযোগে বহুরিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শরীফুল ইসলামকে দল থেকে বহিষ্কার ও তার দৃন্তান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছেন এলাকাবাসী। আজ ২৯ আগস্ট রবিবার দুপুর ১২টা  থেকে ঘন্টাব্যাপি  ওই ইউনিয়নের  কালিদাস বাজারে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। পুলিশি বাধা উপেক্ষা করে  মানববন্ধনে বুলবুল আহমেদের সভাপতিত্বে শরীফুল ইসলামকে দল থেকে অভিলম্বে  বহিষ্কার ও  তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি জানিয়ে এলাকাবাসীর পক্ষে  মোতালেব সরকার, সাইফুল ইসলাম,  মহিলা আওয়ামী নেত্রী  কানিজ ফাতেমা বিউটি, ছাত্রলীগ নেতা সিকদার সুজন, হৃদয় হাসান, সাব্বির আহমেদ,কাউছার আহমেদ রিগান প্রমুখ বক্তব্য দেন। এ সময় তারা মানববন্ধন করতে আগের রাত থেকে মুঠোফোনে এবং মানববন্ধনে পুলিশের নানাভাবে বাঁধা দেওয়ারঅভিযোগ করেন। তবে এ ব্যাপারে সখীপুর থানার সেকেন্ড অফিসার (উপ-পরিদর্শক) আমিনুল ইসলাম   বাধা সৃষ্টি করতে নয়  মানববন্ধনে আইন শৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখতে ঘটনাস্থলে পুলিশ রাখা হয়েছিল।

এ ব্যাপারে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক দুই বারের উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শওকত সিকদার বলেন, বিয়েতে আইনগত পক্রিয়া ব্যক্তয় ঘটালে তার বিরুদ্ধে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙের  সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত:   উপজেলার কালিদাস পানাউল্লাহপাড়া গ্রামের রাইজ উদ্দিনের ছেলে ইমান আলীর সাথে নলুয়া মোল্লাপাড়া গ্রামের আমির মোল্লার মেয়ে স্কুল শিক্ষক রহিমা আক্তার রুমির বিয়ে হয়। বিয়ের কয়েক বছর পরই ভাসুর হাজী আবদুল ছবুর মুন্সীর ছেলে আওয়ামী লীগ নেতা শরিফুল ইসলামের সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েন রহিমা। পরে ২০১৯ সালে চাচীকে দিয়ে চাচাকে ডিভোর্জ করান শরীফুল।  চলতিমাসে  ভাতিজা বহুরিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শরীফুল ইসলাম দুই সন্তানসহ চাচী রহিমা আক্তার রুমিকে বিয়ে করেন। পরে ভাতিজা কর্তৃক চাচীকে বিয়ে করার ঘটনা বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় প্রকাশিত হলে এলাকা ও ইউনিয়বাসীর মাঝে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।

"নিউজ টাঙ্গাইল"র ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.