ব্রেকিং নিউজ :

ভূঞাপুর উপ-সহকারী প্রকৌশলীর দাম্ভিকতা “এরকম নিউজ কতো হয়, এতে কিছু যায় আসেনা”

 ভূঞাপুর প্রতিনিধি: “রাস্তায় ওপর ছিঁড়ে পড়লো তার, উপ-সহকারী প্রকৌশলী বললেন দরখাস্ত দিতে” এ শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশ হয় আরটিভি অনলাইনে। আর তাতেই ক্ষোভ ঝাড়েন প্রকৌশলী মেরাজ হোসেন। তিনি বলেন, “এরকম নিউজ কতো হয়, এতে কিছু যায় আসেনা”। দাম্ভিকতা নিয়ে এমন কথায় নানা সমালোচনা চলছে টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মেরাজ হোসেনকে নিয়ে।
সংবাদ প্রকাশের পরের দিন বৃহস্পতিবার গোবিন্দাসী স্কুল রোডে আসেন উপ-সহকারী প্রকৌশলী মেরাজ হোসেন। এসময় স্থানীয় বিদ্যুৎ গ্রাহক খোকন মিয়া আরটিভি অনলাইনে বিদ্যুৎ নিয়ে সংবাদ প্রকাশ হওয়ার বিষয়টি তুলেন ধরেন। তখন মেরাজ হোসেন বলেন, “এরকম নিউজ কতো হয়, এতে কিছু যায় আসেনা”।
খোকনসহ আশপাশের অনেকেই জানান, বিদ্যুৎ নিয়ে সংবাদ হওয়ার বিষয়ে কথা তুললেই উপ-সহকারী প্রকৌশলী মেরাজ হোসেন বলেন, এমন নিউজ অনেক হয়, এতে কিছু যায় আসেনা। এসব নিয়ে ভাবার সময় নেই।
এদিকে গ্রাহকদের অভিযোগ, যোগদানের অল্পদিনের মধ্যেই নানা অনিয়মে জড়িয়ে পড়েছেন উপ-সহকারী প্রকৌশলী মেরাজ হোসেন। এ জন্য তারা উর্ধতন কর্তৃপক্ষ ও স্থানীয় সংসদ সদস্যের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
বিষয়টি নিয়ে মুঠোফোনে ভূঞাপুর বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মেরাজ হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি এখন কাজে ব্যস্ত। এ বিষয়ে পরে কথা বলবো।
উল্লেখ্য, টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলার গোবিন্দাসী স্কুল রোডে দীর্ঘদিন ধরে জরাজীর্ণ রয়েছে বিদ্যুত লাইনের তার। বার বার বলা হয়েছে ওই এলাকার বাসিন্দা বিদ্যুৎ অফিসে কর্মরত বুলবুল মিয়াকে। তিনি অফিসে জানিয়ে লাইনটি সংস্কারের আশ্বাসও দিয়েছেন অনেকবার। তারপরও লাইনটি সংস্কারে উদ্যোগ নেয়নি কর্তৃপক্ষ। বুধবার রাত ১০টার দিকে লাইনের তার ছিঁড়ে পরে থাকে রাস্তার ওপর। আগুন ধরে যায় তারে। ওই এলাকার গ্রাহকদের পক্ষ থেকে মুঠোফোনে জানানো হয় উপ-সহকারী প্রকৌশলী মেরাজ হোসেনকে। তিনি গ্রাহককে দরখাস্ত দেয়ার কথা বলেন। পরে দেখে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিবেন বলে জানান।
"নিউজ টাঙ্গাইল"র ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.