শিশুদের পরীক্ষামূলক ফাইজারের টিকা দেয়া শুরু

নিউজ টাঙ্গাইল ডেস্ক: অবশেষে দেশে শিশু শিক্ষার্থীদের করোনার টিকা দেওয়া শুরু হলো। ১৪ অক্টোবর বৃহস্পতিবার মানিকগঞ্জের চারটি স্কুলে নবম ও দশম শ্রেণির ১২০ জন শিক্ষার্থীকে টিকা দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে জেলা শহরের সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের ৫০ জন, সরকারি এসকে বালিকা বিদ্যালয়ের ৫০ জন, গড়পাড়া জাহিদ মালেক উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ জন এবং আটিগ্রাম জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ জন শিক্ষার্থীকে ফাইজারের টিকা দেওয়া হয়। স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক মানিকগঞ্জের কর্নেল মালেক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সি শিক্ষার্থীদের পরীক্ষামূলক এ টিকাদান কার্যক্রম উদ্বোধন করেন।

এ সময় দেশে ১ কোটির বেশি শিশুকে করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।  প্রথম পর্যায়ে ৩০ লাখ ডোজ টিকা দেওয়া হবে। সারা দেশে ১ কোটির বেশি ছেলেমেয়েকে আমরা টিকা দেব। এটা পর্যায়ক্রমে দেওয়া হবে।

মন্ত্রী বলেন, আমাদের হাতে এখন ৬০ লাখ ডোজ ফাইজারের টিকা আছে। সারা দেশে ২১টি জায়গায় টিকাদান কার্যক্রম চালানো হবে। ঢাকায় একটি বড় অনুষ্ঠানের মাধ্যমেও টিকাদান হবে। ফাইজারের টিকা সবচেয়ে নিরাপদ। ইতোমধ্যে ইউরোপসহ অন্যান্য দেশে এই টিকা দেওয়া হচ্ছে। মা-বাবা শিশুদের বিদ্যালয়ে পাঠিয়ে দুশ্চিন্তায় থাকেন, তারা করোনায় আক্রান্ত হলো কি না। এই টিকা নেওয়ার পর তারা অনেকটা সুরক্ষিত হবে।

টিকা নেওয়ার আগে জন্মনিবন্ধন কার্ডের মাধ্যমে টিকার নিবন্ধন করে শিক্ষার্থীরা। টিকা দেওয়ার পর তাদের বিশ্রামকেন্দ্রে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক এবিএম খুরশীদ আলম, অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদি সেব্রিনা ফ্লোরা, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল লতিফ, পুলিশ সুপার মুহাম্মদ গোলাম আজাদ খান ও ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডা. লুৎফর রহমান।

নিউজ টাঙ্গাইলের সর্বশেষ খবর পেতে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি অনুসরণ করুন - "নিউজ টাঙ্গাইল"র ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.