বিয়ের দিন ঠিক হওয়ার পর ‘ধর্ষণ’ হবু বরের, করানো হয় ‘গর্ভপাত’, অভিযোগ উঠতি মডেলের

ঠিক হয়ে গিয়েছিল বিয়ের তারিখ। তারপর বাড়িতে নিয়ে গিয়ে তিনবার ধর্ষণ করেন হবু বর। এমনই অভিযোগ করলেন কলকাতার এক উঠতি মডেল। তাঁর দাবি, ধর্ষণের জেরে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন। জোর করে গর্ভপাতও করানো হয় বলে অভিযোগ করেছেন তরুণী। ঘটনাটি দক্ষিণ ২৪ পরগনায় বিক্রমগড়ের।

তরুণীর দাবি, বছর দেড়েক আগে ফেসবুকের মাধ্যমে আলাপ হয়েছিল কলকাতার একটি পানশালার ম্যানেজার সঙ্গে। আগামী ২৯ নভেম্বর বিয়ের দিন ঠিক হয়ে যায়। তারইমধ্যে হবু শ্বশুর, শাশুড়ির সঙ্গে বলার অজুহাতে গত অগস্টে তাঁকে বাড়িয়ে নিয়ে যান অভিযুক্ত যুবক। কিন্তু সেখানে কেউ ছিলেন না।

ফাঁকা বাড়িতে তিনবার ধর্ষণ করা হয় বলে অভিযোগ করেছেন তরুণী। বিক্রমগড়ের ওই তরুণীর দাবি, বিষয়টি প্রশ্ন করতে যুবক বলেন যে কয়েক মাস পরেই তো বিয়ে হবে। তারইমধ্যে অসুস্থ বোধ করতে থাকেন তরুণী। হাসপাতালে নিয়ে যান অভিযুক্ত যুবকই। পরীক্ষার জানা যায় যে তরুণী অন্তঃসত্ত্বা। তারপর থেকে গর্ভপাত করানোর জন্য চাপ দেওয়া থাকে।

তিনি দাবি করেছেন, গর্ভপাতে রাজি না হওয়ায় হবু বর, হবু শাশুড়ি, হবু ননদ মারধর করেন। অভিযুক্ত যুবকের বোন চুলের মুঠি ধরেছিলেন। হাত ধরেছিলেন বোনের স্বামী। যিনি আয়কর দফতরে কাজ করেন। অভিযুক্ত যুবক পেটে সজোরে লাথি মারে। তারপর বাড়িতে জোর করে আটকে করা হয়। পরে একটি ক্নিনিকে নিয়ে জোর করে কাগজে স্বাক্ষর করিয়ে গর্ভপাত করানো হয়। তারপরও অভিযুক্ত যুবকের বাড়িতে আটকে রাখা হয় বলে অভিযোগ।

তরুণীর দাবি, সেই ঘটনার পরই তাঁকে বিয়ে করতে অস্বীকার করেন যুবক। ‘নোংরা’ মেয়ে বলা হয়। ইতিমধ্যে সোমবার সোনারপুর থানায় যুবকে বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ থানায় করেছেন। ঘটনার পর থেকেই অভিযুক্ত যুবক পলাতক। যুবকের পরিবারের তরফেও কোনও মন্তব্য করা হয়নি।

নিউজ টাঙ্গাইলের সর্বশেষ খবর পেতে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি অনুসরণ করুন - "নিউজ টাঙ্গাইল"র ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.