টাঙ্গাইলের সেটি বোমা ছিলো না

নিউজ ডেস্ক:টাঙ্গাইলের গোপালপুরের নন্দপুর বাজার একটি বাসায় বোমার মতো বস্তুটি বোম নয়। পাইপ, পেন্সিল ব্যাটারি ও পাটকাঠি দিয়ে ভয় দেখাতে বোমার মতো সৃষ্টি করা হয়েছে। বোম ডিসপোজাল ইউনিট এসে এসব তথ্য জানান।

বিষয়টি বুধবার (২৪ নভেম্বর) সন্ধ্যায় গোপালপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি, তদন্ত) মামুন ভূইয়া নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, ঢাকা থেকে বোম ডিসপোজাল ইউনিট এসে বোমার মতো বস্তুটি উদ্ধার করে। পরে খুলে সাতটি পাইপের টুকরা, পেন্সিল ব্যাটারি ও পাট কাঠির সঙ্গে স্কচটেপ প্যাচানো ছিলো। ভয় দেখানোর উদ্দেশ্যে দুর্বৃত্তরা এ কাজ করেছে। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে। এ ঘটনায় যে করেছে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

রেহেনা পারভীনের ভাতিজা আল মাসুদ বলেন, ‘সকালের দিকে চাচি নির্মাণাধীন বিল্ডিংয়ে সামনে গেলে সেখানে লাল স্কচটেপযুক্ত বোমার মতো বস্তু দেখতে পায়। বিষয়টি পৌর মেয়রকে অবহিত করা হয়। পরে পুলিশ এসে বাড়িতে ঘিরে রাখে। ধারণা করা হচ্ছে, কোনো কিশোর গ্যাং অথবা মাদকসেবীরা এই কাজ করতে পারে। এই এলাকায় কিশোর গ্যাংদের উৎপাতসহ মাদকসেবীদের দৌড়াত্ম বেশি।’

এর আগে সকালে গোপালপুর পৌরসভার নন্দনপুর বাজার এলাকায় রাজ্জাক মিয়া লিটুর বাসায় বোমার মতো বস্তু রেখে এক লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় সকাল থেকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা বাসাটি ঘিরে রেখেছিলো।

জানা যায়, নন্দনপুর বাজার এলাকায় আব্দুর রাজ্জাক মিয়া লিটু তার চাচাতো বোন স্কুল শিক্ষক ঝর্ণা বেগম মিলে ভবন নির্মাণ করছেন। ভবনের পাশেই একটি টিনের ঘরে করে ঝর্ণা বেগম তার মা রেহেনা পারভীনসহ পরিবার নিয়ে বসবাস করছিলেন। সকালের দিকে ঝর্ণা বেগম নির্মাণাধীণ বাসার সামনে গিয়ে রিমোট কন্ট্রোল লাল বোমার বস্তু দেখতে পায়। পরে তাদের থাকার ঘরের সামনে দুইটি চিঠি দেখতে পায়। চিঠিতে লেখা তার ছেলে বহুতল ভবন নির্মাণ করছেন। এতে এক লাখ টাকা ধার্য করা হয়েছে।

টাকা না দিলে এবং বিষয়টি প্রশাসনকে অবহিত করলে টাইম বোমাটি রিমোট কন্ট্রোলের মাধ্যমে বিস্ফোরণ করা হবে।এবং বাসার মালিকের ছেলেকে গুলি করে মেরে ফেলার হুমকিও দেওয়া হয়। চিঠিতে জানানো হয়, রেখে যাওয়া বোমা দিয়ে দুইটি বাস গাড়ি ধ্বংস করার ক্ষমতা রয়েছে। নির্দিষ্ট জায়গা টাকা দিয়ে না আসলে রাত ১২টার পর রিমোট কন্ট্রোলের মাধ্যমে বোমাটি বিস্ফোরিত করা হবে।

নিউজ টাঙ্গাইলের সর্বশেষ খবর পেতে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি অনুসরণ করুন - "নিউজ টাঙ্গাইল"র ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.