মেম্বার হয়ে বানানো রাস্তা কেটে ফেললেন হেরে

ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে পরাজিত হয়ে নওগাঁর মান্দায় যাতায়াতের একটি রাস্তা কেটে সরিয়ে ফেলার অভিযোগ উঠেছে মেম্বার পদে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর বিরুদ্ধে।

সোমবার (২৯ নভেম্বর) রাত ৮টার দিকে উপজেলার পরানপুর ইউনিয়নের সদলপুর পুকুরপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এতে ওই গ্রামের অন্তত ৩০টি পরিবারের লোকজনের যাতায়াতের পথ বন্ধ হয়ে গেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার পরানপুর ইউনিয়নের সদলপুর পুকুর পাড়া থেকে সদলপুর আদিবাসী পাড়া পর্যন্ত প্রায় ৪০০ মিটার রাস্তার জন্য প্রায় ৩০টি পরিবার দীর্ঘদিন ধরে যাতায়াত সমস্যায় ভুগছেন। ওই এলাকায় জমির আঁইল দিয়ে পায়ে হেঁটে যাওয়ার মতো ব্যবস্থা ছিল। তবে কোনো যান বা ভ্যান নিয়ে যাওয়া যেতো না।

২০ বছর আগে সদলপুর গ্রামের আব্দুল কাদের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তিনি ইউপি মেম্বার নির্বাচিত হলে রাস্তাটি করে দেবেন। পরে এলাকাবাসী ভোট দিয়ে তাকে মেম্বার নির্বাচিত করেন। তিনি সদলপুর আদিবাসী পাড়া থেকে সদলপুর পুকুর পাড়া পর্যন্ত ভ্যান যাওয়ার মতো রাস্তা করে দেন। এরপর ২০ বছর ধরে ওই রাস্তাটি ব্যবহার করে আসছিলেন এলাকাবাসী।

পরে ইউপি নির্বাচনে পরপর তিনবার পরাজিত হন তিনি। তৃতীয় পর্যায়ে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তিনি মেম্বার পদপ্রার্থী ছিলেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন ফ্যান প্রতীকের আতাউর রহমান। রোববার (২৮ নভেম্বর) অনুষ্ঠিত তৃতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে পরাজিত হন আব্দুল কাদের। ভোটের পরদিন সোমবার রাত ৮টার দিকে আব্দুল কাদেরের কর্মী-সমর্থকরা প্রায় ৩০-৪০ জন লোকজন দিয়ে রাস্তাটি কেটে সরিয়ে ফেলেন।

স্থানীয়দের অভিযোগ, এবারের নির্বাচনে ১১৩ ভোটে হেরেছেন আব্দুল কাদের। হেরে যাওয়ায় এলাকার লোকজনের প্রতি চরম ক্ষুব্ধ হন তিনি। সোমবার রাতে তিনি তার লোকজন দিয়ে রাস্তা কেটে সরিয়ে ফেলেন। গ্রামের হতদরিদ্র ও কর্মজীবী মানুষ এখন ভ্যান নিয়ে গ্রামে প্রবেশ করতে পারছেন না। রাস্তাটি কেটে সরিয়ে ফেলায় চরম বেকায়দায় পড়তে হচ্ছে তাদের।

গ্রামের আফসার আলী, লিমা ও নুরজাহান বিবি বলেন, ভোটের আগে আব্দুল কাদের আমাদের গ্রামে এসে ভোট চেয়েছিলেন। আমরা তাকেই ভোট দিয়েছি। এবার ভোটে তিনি পরাজিত হন। যার দায় তিনি আমাদের ওপর চাপিয়ে দিচ্ছেন।

জানতে চাইলে আব্দুল কাদের বলেন, আমার ব্যক্তি মালিকানাধীন জমির ওপর দিয়ে রাস্তাটি নির্মাণ করা হয়েছিল। তাই সেটি কেটে সরিয়ে ফেলা হয়েছে। আগে জমির আঁইল দিয়ে মানুষ যাতায়াত করতো। এখনও তেমন অবস্থায় আছে। নির্বাচনে হেরে ক্ষুব্ধ হয়ে কাজটি করেছি কথাটি সঠিক নয়।

পরানপুর ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মাহফুজুর রহমান উজ্জ্বল বলেন, আগে ভ্যান যাওয়ার মতো যে রাস্তা ছিল সেটা কেটে এখন পায়ে হেঁটে যাওয়ার মতো জমির আঁইল করা হয়েছে। তবে স্থানীয়ভাবে বিষয়টি নিষ্পত্তির চেষ্টা করা হচ্ছে।

পরানপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ইলিয়াস খান বলেন, এখন ওই এলাকাবাসীকে সদলপুর পুকুর পাড়া পর্যন্ত আসতে হলে বিকল্প রাস্তা হিসেবে প্রায় দুই কিলোমিটার ঘুরে আসতে হবে। যা তাদের পক্ষে সম্ভব না। ক্ষোভের বসে হোক বা যে দিক দিয়ে হোক না কেন এটা তিনি ঠিক করেননি।

মান্দা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, এ বিষয়ে লিখিত কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

নিউজ টাঙ্গাইলের সর্বশেষ খবর পেতে গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি অনুসরণ করুন - "নিউজ টাঙ্গাইল"র ইউটিউব চ্যানেল SUBSCRIBE করতে ক্লিক করুন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.